লকডাউনে ছেলেমেয়ের জন্য কাপড় সেলাই করছেন কাজল

করোনা রোধে ভারত লকডাউন থাকায় স্বামী-সন্তানের সঙ্গে মুম্বাইয়ে নিজেদের বাড়িতে সময় কাটছে বলিউড অভিনেত্রী কাজলের। ইনস্টাগ্রামে তার ফলোয়ার সংখ্যা ১ কোটির মাইলফলক ছুঁয়েছে। তাই শনিবার (১১ এপ্রিল) ছবি-শেয়ারিংয়ের এই অ্যাপে লাইভে এসেছিলেন তিনি। ভক্তদের সঙ্গে কথোপকথনে কাজল জানান, ছেলেমেয়ের জন্য কাপড় সেলাই করে নিজেকে ব্যস্ত রাখছেন তিনি। তার কথায়, ‘আমি কিছু কাপড় সেলাই করছি। আমার মেয়ে নাইসার জন্য একটি পোশাক বানিয়েছি। এখন আমার ছেলে যুগের জন্য টি-শার্ট বানাচ্ছি। ভাগ্য ভালো সে ছোট!’

২০১৫ সালে রোহিত শেঠি পরিচালিত ‘দিলওয়ালে’র শুটিং শুরুর ঠিক আগে ইনস্টাগ্রামে যোগ দেন কাজল। ছবিটির মাধ্যমে শাহরুখ খানের বিপরীতে বড় পর্দায় ফিরেছেন তিনি। এতে আরও ছিলেন বরুণ ধাওয়ান ও কৃতি স্যানন। ইনস্টাগ্রামে ১ কোটি ফলোয়ার প্রসঙ্গে নিজের অনুভূতি জানিয়েছেন কাজল। ৪৫ বছর বয়সী এই তারকা বলেন, “সবাইকে ধন্যবাদ। বিশ্বাস হচ্ছে না পাঁচ বছরে আমাদের পরিবার এতটা বড় হয়ে গেছে! মনে আছে, ঠিক পাঁচ বছর আগে ‘দিলওয়ালে’র শুটিং শুরুর সময় ইনস্টাগ্রামে যুক্ত হয়েছিলাম। শুরুতে অতটা বুঝতাম না। তবে এখন অ্যাপটি বেশ উপভোগ করি।”

গত সপ্তাহে নিজের কিছু ছবি দিয়ে হাসির ‘মিম’ তৈরি করে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন কাজল। একইসঙ্গে লকডাউনের সময় কীভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন সে ব্যাপারে ভক্তদের বুদ্ধি দেন। পদ্মশ্রী সম্মান পাওয়া এই অভিনেত্রীর পরামর্শ– পরিবারের সঙ্গে সময় কাটান, নতুন শখ আবিষ্কার করুন ও প্রচুর ঘুমান। পাশাপাশি গুজব না ছড়াতে ফলোয়ারদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

কয়েকদিন আগে গুঞ্জন ছড়িয়েছিল, কাজল ও নাইসা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। তবে বলিউড অভিনেতা অজয় দেবগণ মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটারে সাফ জানিয়ে দেন, ‘কাজল ও নাইসা পুরোপুরি ভালো আছে। তাদের অসুস্থতার গুজব ভিত্তিহীন ও অসত্য।’ ১৯৯৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি বিয়ে করেন অজয় দেবগণ ও কাজল। ২০০৩ সালের ২০ এপ্রিল নাইসার জন্ম হয়। আর যুগের জন্ম ২০১০ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর।